পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী নতুন সরকার গঠণের মাত্র দেড় মাসের মধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে তিনি জানান, আগামী ৩০ জুন থেকে চালু হবে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড। এই কার্ডের মাধ্যমে ২৪ বছর পর্যন্ত যেকোনো শিক্ষার্থী পড়াশোনার জন্য ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ন্যূনতম সুদে লোন নিতে পারবে। দশম শ্রেণি থেকেই এই ক্রেডিট কার্ড নেওয়া যাবে।

খবরে বলা হয়, নির্বাচনের আগে ইশতেহারে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের কথা। পড়াশোনার জন্য শিক্ষার্থীদের ১০ লাখ টাকা ঋণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে সাংবাদিকদের এক ব্রিফিংয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘‌ক্যাবিনেটে অনুমোদন পেয়েছে এই প্রকল্প। দশম শ্রেণি থেকেই এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন শিক্ষার্থীরা।’‌

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌পড়াশোনা করার জন্য আর ঘরবাড়ি বিক্রি করতে হবে না। ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে হলে পশ্চিমবঙ্গ সরকার গ্যারেন্টার হবে। পড়াশোনার জন্য বাবা–মায়েদের যেরকম চিন্তা করতে হয়, তা আর করার প্রয়োজন নেই। রাজ্য সরকার আপনাদের পাশে আছে। আজকের দিনটি শিক্ষার্থীদের।’

তিনি আরো বলেন, ‘রাজ্যে দশম শ্রেণিতে প্রতি বছর প্রায় ১০ লাখ পড়ুয়া থাকে। দ্বাদশ শ্রেণিতে থাকে সাড়ে ৯ লাখ। দশম থেকে স্নাতক, স্নাতকোত্তর–সহ যাবতীয় পড়াশোনার জন্য রাজ্যের পক্ষ থেকে এবার শিক্ষার্থীদের ১০ লাখ টাকা করে আর্থিক সাহায্য করা হবে। যা ক্রেডিট হবে তা ফেরত দেওয়ার জন্য চাকরি পাওয়ার পর ১৫ বছর সময় পাবেন শিক্ষার্থীরা।’‌

অনলাইনেই এই কার্ড সংগ্রহ করা যাবে। কীভাবে আবেদন করতে হবে এবং কীভাবে এই কার্ড পাওয়া যাবে, তা আগামী ৩০ জুন প্রকল্পের সূচনার পরই জানানো হবে। একুশের নির্বাচনের আগে তৃণমূল সুপ্রিমো কৃষকদের কথা দিয়েছিলেন, ক্ষমতায় ফিরলে এই ভাতার অঙ্ক দ্বিগুণ বাড়ানো হবে। ক্ষমতায় ফিরে সেই কথাও রেখেছেন তিনি। চলতি মাসের শুরুতেই মন্ত্রিসভার অনুমোদন পায় ভাতা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত। ১৭ জুন থেকে শুরু হয়েছে টাকা বন্টন। এবার অনুমোদিত হল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পও।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here