খুলনা জেলা পরিষদের ১ কোটি ৩৫ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজের টেন্ডার সমঝোতার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার রাজনৈতিক দলের প্রভাবশালী ঠিকাদার ও কতিপয় নেতার মধ্যস্থতায় এ সমঝোতা হয়েছে। ফলে কাজটি বাগিয়ে নিয়েছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স জামাল ট্রেডার্স।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এক কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে খুলনা সদরে শেখ জামাল টেনিস একাডেমি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে গত ১৩ জুন দরপত্রের আহ্বান করে খুলনা জেলা পরিষদ। গত ২৭ জুন ছিল দরপত্র বিক্রির শেষ দিন।

মঙ্গলবার দুপুর ১টায় ওই দরপত্র জমার শেষ সময় ধার্য্য করা হয়। দরপত্র উন্মুক্ত করার সময় ছিল বিকেল ৩টায়। শেষ দিন পর্যন্ত ১৭টি দরপত্র বিক্রি হয়। আর নির্ধারিত সময় দুপুর ১টার মধ্যে মাত্র ৫টি দরপত্র জমা পড়ে। তবে ৫টির মধ্যে সর্বনিম্ন দরদাতা হয়েছেন মেসার্স জামাল ট্রেডার্স।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ঠিকাদার অভিযোগ করেন, আগের দিন ঠিকাদারদের কাছ থেকে দরপত্র নিয়ে নেয়া হয়েছে। এছাড়া সকাল থেকে জেলা পরিষদের অভ্যন্তরে প্রভাবশালী ঠিকাদাররা ওই টেন্ডার কাজের সমঝোতার চেষ্টা করেন। ফলে তাদের ভয়ে সাধারণ ঠিকাদাররা দরপত্র জমা দিতে ব্যর্থ হয়েছেন। প্রভাবশালী ঠিকাদারের সঙ্গে যুক্ত হন স্থানীয় কতিপয় নেতা।

তারা আরো জানান, প্রভাবশালীদের হুমকিতে ১৭ ঠিকাদারের ১২ জনই দরপত্র জমা না দেয়ায় কাজটি কৌশলে বাগিয়ে নিয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জামাল ট্রেডার্স।

জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, শেষ সময় পর্যন্ত ১৭টি দরপত্র বিক্রি হয়। তার বিপরীতে দরপত্র পড়েছে মাত্র ৫টি। এখন টিইসি কমিটিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সিন্ডিকেটের ব্যাপারে তিনি বলেন, তার দফতরে কোনো সমঝোতা হয়নি। বাইরে কিছু হলেও সে ব্যাপারে আমি অবগত নই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here